আপডেট : ৯ অক্টোবর, ২০২০ ১০:৩৭

বাংলাদেশের জন্য বিমান ছিনতাই, অতপর...

অনলাইন ডেস্ক
বাংলাদেশের জন্য বিমান ছিনতাই, অতপর...

একজন বিমান ছিনতাইকারী। ১৯৭১ সালে ফ্রান্সের এই তরুণ পাকিস্তানের একটি বিমান ছিনতাই করে বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধের ঐতিহাসিক বন্ধুতে পরিণত হন।

বিমানটি ছিনতাই করার একটাই উদ্দেশ্য ছিল, পূর্ব পাকিস্তানের স্বাধীনতাকামী মানুষের জন্যে ২০ টন ওষুধ ওই বিমানে তুলে দিতে হবে, তাহলেই কেবল মুক্তি পাবে বিমানের সব যাত্রী। কারণ, পূর্ব পাকিস্তানের যুদ্ধাহত মানুষদের বাঁচাতে চিকিৎসা সেবা প্রয়োজন।
এমন একজন স্বাধীনতাকামী মানুষ ও সত্যি ঘটনাটা অবলম্বন করে এবার বাংলাদেশে নির্মিত হচ্ছে পূর্ণদৈর্ঘ্য চলচ্চিত্র। নাম ‘১৯৭১ এবং কুয়ে’। এটি নির্মাণ করছেন ‘ভুবন মাঝি’ ও ‘গণ্ডি’ নির্মাতা ফাখরুল আরেফীন খান।

তিনি বলেন, ‘১৯৭১ সালের ১৩ ডিসেম্বর প্যারিসের আর্লি বিমানবন্দরে বাংলাদেশের জন্য জ্যা কুয়ে পাকিস্তানের পিআইএ-৭১১ বিমানটি যাত্রীসহ ছিনতাই করেছিলেন। সেদিন কুয়ে কেমন করে কোন ভাবনা থেকে বিমানটি ছিনতাই করলেন। কী ঘটেছিল বিমানের ভেতরে। পুরো বিষয়টি আমরা পর্দায় তুলে আনতে চাই।’

ফাখরুল আরেফীন খান আরও বলেন, ‘এটা আমাদের গড়াই ফিল্মসের প্রথম আন্তর্জাতিক কাজ। মুক্তিযুদ্ধের সময় দেশের বিপদে পড়া মানুষদের সাহায্য করার জন্যই জ্যা কুয়ে বিমান ছিনতাই করেছিলেন। যদিও অফিসারদের চালাকির কারণে তিনি আটকা পড়েছিলেন সেদিন। কিন্তু ঠিকই তার শর্ত ধরে ২০ টন ওষুধ বাংলাদেশে এসেছিল।’ ছবিটির চিত্রনাট্য তৈরি হচ্ছে। চলছে কাস্টিং পরিকল্পনাও। তবে এসব নি

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/রাসেল

উপরে