আপডেট : ২২ মার্চ, ২০২১ ২১:৫৬

ইমরানের পর এবার পাকিস্তানের সেনা প্রধানও চাইছেন শান্তি। প্রস্তাব ভারতের প্রতি

অনলাইন ডেস্ক
ইমরানের পর এবার পাকিস্তানের সেনা প্রধানও চাইছেন শান্তি। প্রস্তাব ভারতের প্রতি

তাহলে কি বরফ গলছে? দু’দিন আগেই পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান শান্তির বার্তা দিয়েছিলেন ভারতকে। ভারত এবং পাকিস্তান দুই দেশ একে অপরকে সাহায্য করে চলা উচিত জানিয়েছিলেন ইমরান। পাক প্রধানমন্ত্রী মনে করিয়ে জানান, পাকিস্তানের সঙ্গে সুসম্পর্ক থাকলে ভারত অর্থনৈতিক দিক থেকেও লাভবান হওয়ার সম্ভাবনা যেমন থাকবে তেমনই প্রয়োজনে ভারতকে নিজেদের জমি ব্যবহার করে মধ্য এশিয়ার সঙ্গে ব্যবসা করতেও অনুমতি থাকবে পাকিস্তানের।

এবার একই সুর শোনা গেল পাকিস্তানের সেনাপ্রধান জেনারেল কামার জাভেদ বাজোয়ার মুখে। নতুন প্রেসিডেন্ট নিযুক্ত হওয়ার পর থেকে ভারতের সঙ্গে মিত্রতা বাড়ানোর চেষ্টা করছে আমেরিকা। চিনের থেকে মুখ ফিরিয়ে নিয়েছে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। দক্ষিণ এশিয়ায় নিরাপত্তা স্থাপনে কৌশলগত দিক থেকে ভারতের দর বাড়ছে। কয়েকদিন আগে ভারত, আমেরিকা, জাপান এবং অস্ট্রেলিয়া চারটি দেশের অক্ষ কোয়াড নিয়ে আগ্রহ দেখিয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট জো বাইডেন।

সাধারণত পাকিস্তানের প্রধানমন্ত্রীর চেয়ারে যিনিই বসুন না কেন, রিমোট কন্ট্রোল থাকে সেনাবাহিনীর হাতে। তাই চাপে পড়েই পাকিস্তানের ভারতপ্রীতি জেগে উঠেছে মনে করেন সাউথ ব্লকের কর্তারা। পাক সেনাপ্রধান জানিয়েছেন দুই দেশের বিবাদ কাশ্মীরকে ঘিরে। শান্তিপূর্ণ সমাধান বের করা দুই দেশের কর্তব্য। কাশ্মীর সমস্যার সমাধান না হলে উপমহাদেশে শান্তি ফিরবে না। পাকিস্তান বারবার ভারতের সঙ্গে আলোচনার টেবিলে বসতে চাইলেও সদিচ্ছা দেখায়নি নয়াদিল্লি।

উল্লেখ্য ফেব্রুয়ারি মাসের মাঝামাঝি ভারত সরকার জানিয়েছিল পাকিস্তানের সঙ্গে প্রতিবেশী হিসেবে সুসম্পর্ক চায় ভারত। কিন্তু ভারতবিরোধী কার্যকলাপে পাকিস্তান নিজেদের জমি ব্যবহার করতে দিচ্ছে জঙ্গিদের। বার বার বলেও কোনও লাভ হয়নি। তাছাড়া কাশ্মীর বা অন্যান্য সীমান্ত দিয়ে এই মুহূর্তে ভারতে জঙ্গি অনুপ্রবেশ সেভাবে করাতে পারছে না পাকিস্তান। বরঞ্চ পাকিস্তান সম্পর্কে ভারতের অভিজ্ঞতা সিঁদুরে মেঘ দেখার মত। তাই ইমরান অথবা পাক সেনা প্রধানের বার্তায় প্রভাবিত হতে রাজি নয় ভারত।

উপরে