আপডেট : ১৪ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ ১৫:২২

৬ কোটি টাকার ফুল বিক্রি

অনলাইন ডেস্ক
৬ কোটি টাকার ফুল বিক্রি

ভালোবাসার হাতে তুলে দেওয়া ফুলের বাড়তি দামেও থেমে নেই প্রেমিক-প্রেমিকেরা। বিগত বছরের তুলনায় রাজধানীর শাহাবাগের ফুলের দোকানে এবার ক্রেতার সংখ্যা কিছুটা কম হলেও আশাবাদী বিক্রেতারা। পয়লা ফাল্গুনের আগের দিন ফুল বিক্রি কম হলেও গতকাল মঙ্গলবার থেকে আজ সকাল পর্যন্ত ফুলের বিক্রিতে সন্তুষ্ট বিক্রেতারা।
 
ফাগুনের আগুন লাগা দিনের তুলনায় বিশ্ব ভালোবাসা দিবস উপলক্ষে ফুল বিক্রি ভালো হয়েছে বলে জানান শাহাবাগ বটতলা ফুল মার্কেট সমিতির সাধারণ সম্পাদক মো. বিলাল হোসেন। তবে গতবারের তুলনায় কিছুটা কম বিক্রি হচ্ছে ফুল।

তিনি জানান, গত দুই দিনে ৫০ থেকে ৬০ লাখ টাকার ফুল বিক্রি হয়েছে এই মার্কেটে। তবে রাজনৈতিক অস্থিরতার কারণে গতবারের তুলনায় এবার কিছুটা কম।

এদিকে, শাহাবাগ শিশুপার্ক মার্কেটের পাইকারি ফুল বিক্রেতারা জানিয়েছেন, গত বছরের তুলনায় এবার বিক্রি ভালো হয়েছে।

ফুল ব্যবসায়ী কল্যাণ সমিতির যুগ্ম-সাংগঠনিক সম্পাদক মো. কালু মিয়া জানান, গত দুই দিনে প্রায় ৬ কোটি টাকার ওপরে ফুল বিক্রি হয়েছে।

তিনি বলেন, আমরা খুচরা ফুল বিক্রি করি না। সাভার ও যশোর থেকে সরাসরি ফুল নিয়ে এসে রাজধানীসহ এর আশপাশের জেলায় ফুল সাপ্লাই দেই। আমাদের বিক্রি সব সময় ভালো থাকে।

তবে গত বছরের অক্টোবর ও নভেম্বর মাসে টানা তিন দিন বৃষ্টি হওয়ায় ফুলের অনেক ক্ষতি হয়েছে। এ জন্য খুচরা ফুলের দাম বেশি।

শাহাবাগ ফুলের দোকানে সব থেকে বেশি বিক্রি হচ্ছে গোলাপ, মাথার ক্রাউন, ঝাড়বারা, গ্যালোডিলাস, চিরিগান্ডা, জিপসি, অর্কিড, লিলি, মাম, নীল কণ্ঠ ও গাদা ফুল।

তবে ছেলেদের পছন্দের তালিকায় গোলাপ ও ঝাড়বারা ফুল সোভা পাচ্ছে। আর মেয়েদের তালিকায় রয়েছে মাথাত ক্রাউন।

সকাল থেকে শাহাবাগ ফুলের দোকান ঘুরে দেখা যায়, একটি গোলাপ এক থেকে ১৫০ টাকা চাওয়ায় এক দোকান থেকে অন্য দোকানে ছুটছেন ফুল ক্রেতারা।

বিল্পব নামের এক ফুল ক্রেতাকে দেখা যায় এক দোকান থেকে অন্য দোকানে ছুটছেন। কেন এতো ছোটাছুটি এমন প্রশ্ন ফুল বিক্রেতারাই করে বসেছেন। জবাবে বিল্পব বলেন, কি করবো আপনারা যে পরিমাণ দাম হাঁকাচ্ছেন, তাতে কিভাবে পছন্দের ফুল কেনা যায়।

ভালোবাসার জন্য একটু দাম দিয়ে কিনতে সমস্যা কোথায় এমন প্রশ্ন শুনে হাসি মুখে এই তরুণ বলেন, সমস্যা কোথাও নেই। তবে এক দিনের জন্য এতো ব্যবসা করাও তো উচিত না। বেকার ছেলেদের প্রেমে কতো সমস্যা তা সবার জানা।

পাশে থাকা অন্য এক তরুণ সীমান্ত বলেন, শুধু ফুল দিয়ে তো প্রেমিকাকে গিফট দেওয়া যায় না। খাবার, সারাদিন রিকশায়, এরপর গিফট।

সব শেষে এই তরুণ বলে ওঠেন, ভালোবাসা ভালো থাকুক, বেঁচে থাকুক। সবাই ভালোবাসাকে সম্মান জানিয়ে বাণিজ্য করা থেকে বিরত থাকুন।

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/জেডএম

উপরে