আপডেট : ২৪ সেপ্টেম্বর, ২০২০ ২১:৩২
পাকিস্তানের প্রতি বাংলাদেশ খ্রিস্টান অ্যাসোসিয়েশন

‘সংখ্যালঘু নির্যাতন বন্ধ করুন’

ব্লাসফেমি আইন বাতিল চেয়ে স্মারকলিপি
নিজস্ব প্রতিবেদক
‘সংখ্যালঘু নির্যাতন বন্ধ করুন’
পাকিস্তানে ব্লাসফেমি আইন বাতিলের দাবিতে বুধবার গুলশানে বাংলাদেশ খ্রিস্টান অ্যাসোসিয়েশনের সমাবেশ।

পাকিস্তানের নিবর্তনমূলক অগ্রহণযোগ্য ব্লাসফেমি আইন বাতিল চেয়ে দেশটির প্রধানমন্ত্রী ইমরান খান বরাবর স্মারকলিপি দিয়েছে বাংলাদেশ খ্রিস্টান অ্যাসোসিয়েশন।

গুলশান-২ নম্বর গোল চত্বরে এক সমাবেশ শেষে বুধবার দুপুরে পাকিস্তান হাই কমিশনে এ স্মারকলিপি পৌঁছে দেন সংগঠনটির নেতারা।

পাকিস্তানের খ্রিস্টানসহ অন্যান্য সংখ্যালঘু সম্প্রদায়ের উপর ব্লাসফেমি আইনের অপব্যবহার ও তার আবরণে হয়রানি, নির্যাতন-নিষ্পেষণ এবং মৃত্যুদণ্ড বন্ধসহ মানবাধিকার পরিপন্থী ব্লাসফেমি আইন অবিলম্বে বাতিলের দাবি জানানো হয়েছে স্মারকলিপিতে। একইসঙ্গে যাদেরকে ব্লাসফেমি আইনে মৃত্যুদণ্ডের রায় হয়েছে, তাদেরকে ক্ষমা করে জীবন রক্ষার দাবি জানানো হয় সমাবেশে।

মোবাইল এসএমএসে অবমাননাকর মন্তব্যের অভিযোগে সম্প্রতি পাকিস্তানের আদালতে খ্রিস্টান ধর্মাবলম্বী যুবক আসিফ পারভেজের মৃত্যদণ্ডের রায় হওয়ার প্রসঙ্গ টেনে স্মারকলিপিতে খ্রিস্টান অ্যাসোসিয়েশন বলেছে, খাইয়ার পাখতুনখাওয়ায় ব্লাসফেমি আইনে আরেক খ্রিস্টান ধর্মাবলম্বী ডেভিড মসিহকে অভিযুক্ত করা কয়েকদিনের মাথায় এসেছে এ রায়।

পারভেজ তৈরি পোশাক কারখানায় কাজ করতেন । তার সুপারভাইজার টেক্সট মেসেজে মহানবীকে অবমাননার বানোয়াট অভিযোগ আনার পর ২০১৩ সাল থেকে তিনি পুলিশ হেফাজতে আছেন বলে স্মারকলিপিতে বলা হয়।

ব্লাসফেমি আইনের বিরোধিতা করতে গিয়ে কয়েকজন মানবাধিকারকর্মীকে হত্যার প্রসঙ্গও উল্লেখ করা হয় এতে।

সমাবেশে অ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি নির্মল রোজারিও বলেন, “ছোটোখাটো বিষয় আর মিথ্যা অভিযোগের জন্য কারও প্রাণ যাবে, আমরা এটা কোনোভাবে হতে দিতে পারি না। কেউ একজন অপবাদ দিল, আর অন্য একজনের মৃত্যুদণ্ড হবে, সভ্য দেশে এ আইন চলে না।

“খ্রিস্টানসহ পাকিস্তানের সংখ্যালঘুদের নিপীড়নের অস্ত্র এই আইন। এ কারণে ব্লাসফেমি আইনেরবিরুদ্ধে আমাদের অবস্থান।”

সমাবেশে সংহতি জানিয়ে বাংলাদেশ সচেতন নাগরিক কমিটির সভাপতি সাবেক রাষ্ট্রদূত অধ্যাপক নিমচন্দ্র ভৌমিক বলেন, “আধুনিক রাষ্ট্রে বিশ্বাস করলে সেটাকে ধর্মনিরপেক্ষ হওয়া উচিত। কিন্তু পাকিস্তান ব্লাসফেমির মত কালাকানুন দিয়ে জঙ্গিবাদ-সন্ত্রাসবাদকে উস্কানি দিচ্ছে, ধর্মীয় সংখ্যালঘুদের নির্যাতন করছে। এটা চলতে দেওয়া যায়না।”

সমাবেশে অন্যদের মধ্যে বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদের সাধারণ সম্পাদক নির্মল চ্যাটার্জি, বাংলাদেশ বুদ্ধিস্ট ফেডারেশনের সাধারণ সম্পাদক ভদন্ত সুনন্দপ্রিয় ভিক্ষু, অ্যাসোসিয়েশনের যুগ্ম-মহাসচিব জেমস সুব্রত হাজরা, আন্তর্জাতিক বিষয়ক সম্পাদক থিওফিল রোজারিও, নারী বিষয়ক সম্পাদক কল্পনা ফলিয়া বক্তব্য দেন।

উপরে