আপডেট : ২৭ ফেব্রুয়ারি, ২০২০ ১৬:৫৫
খালেদা জিয়ার জামিন হয়নি

রায় শুনে বিক্ষোভে ফেটে পড়েছেন বিএনপির আইনজীবীরা

অনলাইন ডেস্ক
রায় শুনে বিক্ষোভে ফেটে পড়েছেন বিএনপির আইনজীবীরা

জিয়া চ্যারিটেবল ট্রাস্ট মামলায় সাজাপ্রাপ্ত বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার জামিন আবেদন খারিজ করে দিয়েছেন আদালত। বৃহস্পতিবার (২৭ ফেব্রুয়ারি) বিচারপতি ওবায়দুল হাসান ও বিচারপতি একেএম জহিরুল হকের হাইকোর্ট বেঞ্চ এ রায় দেন।

আদালতের এ রায়কে প্রত্যাখ্যান করেছে খালেদা জিয়ার আইনজীবী। রায়ের পর আদালত প্রাঙ্গনে স্লোগান দিয়ে প্রতিবাদ জানায় বিএনপির আইনজীবীরা। বিএনপির আইনজীবীদের বিক্ষোভে পুরো আদালত প্রাঙ্গণ কেঁপে উঠে। রায়ের পর সংবাদমাধ্যমে কথা বলেছেন বেগম আইনজীবী জয়নুল আবেদীন।

তিনি বলেন, ‘বিএসএমএমইউ সরকার নিয়ন্ত্রিত হাসপাতাল। তাদের অধীনে নিরপেক্ষ রিপোর্ট পাওয়া সম্ভব না।’এ দিন এর আগে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ে উন্নত চিকিৎসার জন্য রাজি হননি খালেদা জিয়া। বিএসএমএমইউ থেকে পাঠানো চিকিৎসা সংক্রান্ত প্রতিবেদনে এ তথ্য জানানো হয়।

হাইকোর্টে সুপ্রিম কোর্টের রেজিস্ট্রার জেনারেল মো. আলী আকবর প্রতিবেদনটি জমা দেন। শুনানির প্রথম দিকে আদালত খালেদা জিয়ার চিকিৎসা সংক্রান্ত প্রতিবেদনটি পাঠ করে শোনান। এরপর আদালত জামিন সংক্রান্ত আবেদনের আদেশ দিতে চাইলে খালেদা জিয়ার আইনজীবী জয়নুল রবিবার পর্যন্ত সময় চান।

কিন্তু আদালত রাজি না হলে তিনি (জয়নুল) দুপুর দুইটা পর্যন্ত সময় দেওয়ার আবেদন জানান। আবেদনের প্রেক্ষিতে এ বিষয়ে আদেশের জন্য দুপুর ২টা সময় নির্ধারণ করেন আদালত। আদালতে খালেদা জিয়ার পক্ষে শুনানি করেন জ্যেষ্ঠ আইনজীবী জয়নুল আবেদীন। রাষ্ট্রপক্ষে অ্যাটর্নি জেনারেল মাহবুবে আলম ও দুদকের পক্ষে খুরশীদ আলম খান।

গত ২৩ ফেব্রুয়ারি উন্নত চিকিৎসার জন্য বিএনপি চেয়ারপারসন সম্মতি দিয়েছেন কি না, সম্মতি দিলে চিকিৎসা শুরু হয়েছে কি না এবং শুরু হলে কী অবস্থা তা জানাতে বিএসএমএমইউয়ের উপাচার্যকে হাইকোর্ট নির্দেশ দেন। বুধবার (২৬ ফেব্রুয়ারি) সুপ্রিম কোর্টের রেজিস্ট্রার জেনারেল কার্যালয়ে বিএসএমএমইউ থেকে প্রতিবেদন পাঠানো হয়। এ বিষয়ে আদেশের জন্য বৃহস্পতিবার (২৭ ফেব্রুয়ারি) দিন রাখেন হাইকোর্ট।

বিডিটাইমস৩৬৫ডটকম/জিএম

উপরে